FWICE কঙ্গনা রানাউত চড় মারার ঘটনায় প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে: ফেডারেশন ঘটনাটিকে নিন্দনীয় বলে অভিহিত করেছে, মহিলা কনস্টেবলের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি করেছে

FWICE কঙ্গনা রানাউত চড় মারার ঘটনায় প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে: ফেডারেশন ঘটনাটিকে নিন্দনীয় বলে অভিহিত করেছে, মহিলা কনস্টেবলের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি করেছে

ফেডারেশন অফ ওয়েস্টার্ন ইন্ডিয়া সিনে এমপ্লয়িজ (এফডব্লিউআইসিই) কঙ্গনা রানাউতের থাপ্পড়ের ঘটনায় প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে। এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে চলচ্চিত্র ফেডারেশন। যে মহিলা কনস্টেবল কুলবিন্দরকে চড় মেরেছিল তার বিরুদ্ধে অবিলম্বে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়েছে ফেডারেশন।

ফেডারেশনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে- ফেডারেশন এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানায়। কঙ্গনা রানাউত ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে অনেক বেশি অবদান রেখেছেন। সাম্প্রতিক লোকসভা নির্বাচনে জিতে তিনি সাংসদও হয়েছেন। গোটা ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি এই ঘটনায় শোকাহত। আমরা কঙ্গনার নিরাপত্তা নিয়ে খুব চিন্তিত। FWICE সেই মহিলা কনস্টেবলের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়েছে।

ফেডারেশন কর্তৃক জারি করা প্রেস নোট

ফেডারেশন কর্তৃক জারি করা প্রেস নোট

জেনে নিন কী ছিল পুরো ঘটনা
মান্ডি আসন থেকে লোকসভা নির্বাচনে জয়ী হওয়ার পর, কঙ্গনাকে বৃহস্পতিবার (6 জুন) চণ্ডীগড় বিমানবন্দরে CISF মহিলা কনস্টেবল কুলবিন্দর কৌর চড় মেরেছিলেন। বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। চণ্ডীগড় থেকে দিল্লি যাচ্ছিলেন কঙ্গনা। এরপর বিমানবন্দরে নিরাপত্তা তল্লাশির সময় ওই মহিলা কনস্টেবলের সঙ্গে তর্কাতর্কি হয় এবং তিনি তাকে চড় মারেন।

একই সময়ে, মহিলা কনস্টেবলের একটি ভিডিও সামনে এসেছে যাতে তিনি বলছেন, ‘কঙ্গনা বলেছিলেন যে লোকেরা 100 টাকার জন্য কৃষকদের আন্দোলনে বসেছে। তিনি যখন এই বক্তব্য দেন তখন আমার মাও সেখানে বসে ছিলেন।

কৃষকদের আন্দোলনের সময় কঙ্গনা রানাউতের দেওয়া বক্তব্যে ভীষণ ক্ষুব্ধ কুলবিন্দর। এ কারণে কঙ্গনাকে আক্রমণ করেন তিনি। হামলার পরপরই তাকে হেফাজতে নেওয়া হয়।

কঙ্গনার অভিযোগ- মহিলা সৈনিক আমাকে গালিগালাজ করেছে
ইনস্টাগ্রামে একটি গল্প শেয়ার করে এই ঘটনাটি নিশ্চিত করেছেন কঙ্গনা। তিনি বলেছিলেন, ‘আমি নিরাপদ। আজ চণ্ডীগড় বিমানবন্দরে আমার সাথে একটি দুর্ঘটনা ঘটেছে। বিমানবন্দরে একজন মহিলা সৈনিক আমাকে গালিগালাজ শুরু করে। তিনি জানান, তিনি কৃষক আন্দোলনের সমর্থক। ও পাশ থেকে এসে আমার মুখে মারলো। আমি নিরাপদ, কিন্তু আমার উদ্বেগ পাঞ্জাবে ক্রমবর্ধমান চরমপন্থা ও সন্ত্রাসবাদ নিয়ে। এটা কোনো না কোনোভাবে পরিচালনা করতে হবে।

কঙ্গনার চড় মারার ঘটনায় বিভক্ত বলিউড
এ নিয়ে বলিউড দুই শিবিরে বিভক্ত। গায়ক বিশাল দাদলানি যেখানে তাকে চড় মারা মহিলা কনস্টেবল কুলবিন্দরকে সমর্থন করেছেন, গায়ক মিকা সিং এই বিষয়ে কঙ্গনাকে সমর্থন করেছেন। মিকা সিং বলেছেন যে মহিলা কনস্টেবলকে জনগণের সুরক্ষার জন্য সেখানে মোতায়েন করা হয়েছিল, তার কোনও যাত্রীকে আক্রমণ করা উচিত হয়নি।

বিশাল দাদলানি বলেছিলেন যে যদি সেই মহিলা কনস্টেবলকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয় তবে তিনি নিশ্চিত করবেন যে তাকে চাকরি দেওয়া হবে। বিশাল বলল, ওই মহিলা কনস্টেবল নিশ্চয়ই অনেক রাগে ভরে গিয়েছে, তাই সে এই কাজ করেছে।

একই সঙ্গে মিকা বলেন, তার ভেতরে এত ক্ষোভ থাকলে তিনি সিভিল ড্রেসে আসতেন। ইউনিফর্ম পরা অবস্থায় এমন করে তিনি সঠিক বার্তা দেননি। অন্য পাঞ্জাবি নারীদের এর ফল ভোগ করতে হতে পারে।

(Feed Source: bhaskarhindi.com)