চোখ অমূল্য, রেটিনার স্বাস্থ্য রক্ষা করতে মেনে চলুন বিশেষজ্ঞের এই পাঁচ টিপস

চোখ অমূল্য, রেটিনার স্বাস্থ্য রক্ষা করতে মেনে চলুন বিশেষজ্ঞের এই পাঁচ টিপস

মানুষের নানা অঙ্গপ্রত্যঙ্গ বয়সের সঙ্গে সঙ্গে খানিকটা হলেও বিকল হয়। তবে অনেকে সময়ই দেখা যায় তা বয়সের আগেই ঘটে যাচ্ছে। সেক্ষেত্রে সতর্কতা বিশেষ প্রয়োজন। চোখ এমনই একটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ, যাকে রক্ষা করা খুব প্রয়োজন। চোখের স্বাস্থ্য এবং দৃষ্টিশক্তি স্বাভাবিক রাখার উপায় কী, তা আমরা অনেকেই জানি না। সোমাজিগুড়া, হায়দরাবাদের ম্যাক্সিভিশন চক্ষু হাসপাতালের রেটিনা বিশেষজ্ঞ ডা. অঞ্জু ভর্মার দাবি, সব থেকে বেশি যত্নের প্রয়োজন রেটিনার।

Dr. Anju Verma

আসলে রেটিনা হল চোখের পিছনের আস্তরণে থাকা একটি টিস্যু। যার সাহায্যে আলো আমাদের মস্তিষ্কের কাছে ব্যাখ্যাযোগ্য হয় এবং আমরা কোনও জিনিস দেখতে পাই। তাই রেটিনার যত্ন নেওয়া অপরিহার্য। ডা. অঞ্জু ভর্মার দিলেন পাঁচটি টিপস—

দৃষ্টিশক্তির মূল কথা

মানুষের চোখ যদি ক্যামেরা হয়, তবে রেটিনা হল ফিল্ম। দৃশ্যকে ধারণ করে এটি অপটিক নার্ভের মাধ্যমে মস্তিষ্কে পাঠায়। মাঝখানে সেই দৃশ্যের কিছু বদলও ঘটিয়ে নেয় নিজের মতো করে। রেটিনার ক্ষতির হলে দৃষ্টিশক্তি নষ্ট হতে পারে।

সনাক্তকরণ

সাধারণত মানুষ রেটিনার রোগ সম্পর্কে সচেতন হন না। কারণ এগুলি প্রায় কোনও লক্ষণ ছাড়াই বেড়ে যেতে পারে। নিয়মিত চক্ষু পরীক্ষা এই রোগ সনাক্ত করতে পারে। ডায়াবেটিক রেটিনোপ্যাথি এবং বয়সজনিত কারণে হওয়া ম্যাকুলার ডিজেনারেশনের মতো অবস্থা যত তাড়াতাড়ি ধরা পড়ে ততই ভাল।

জীবনচর্যার প্রভাব

স্বাস্থ্যকর জীবনধারা বজায় রাখতে পারলে রেটিনার স্বাস্থ্য অনেকটা ভাল রাখা সম্ভব। সঠিক পুষ্টি, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড সমৃদ্ধ খাবার খেলে রেটিনা রোগের ঝুঁকি কমে। সেক্ষেত্রে ধূমপান বন্ধ করা প্রয়োজন। ডায়াবেটিসের মতো রোগের কারণেও রেটিনার ক্ষতি হতে পারে।

বাইরের ক্ষতি থেকে রক্ষা

সূর্যের UV রশ্মি চোখের পক্ষে ক্ষতিকর। তাই একটা সানগ্লাস ব্যবহার করা ভাল। আঘাত থেকেও চোখ বাঁচিয়ে রাখতে হবে কারণ, ছোটখাটো আঘাতও রেটিনায় বড় প্রভাব ফেলতে পারে। সেক্ষেত্রে চিকিৎসার প্রয়োজন হয় যত শীঘ্র সম্ভব।

সচেতনতা প্রয়োজন

দৃষ্টিতে কোনও আকস্মিক পরিবর্তন, হঠাৎ চোখে আলোর ঝলকানি বা সব সময় কিছু ভেসে বেড়াতে দেখলে তা কখনই উপেক্ষা করা উচিত নয়। এগুলি রেটিনার রোগের লক্ষণ হতে পারে। নিয়মিত চোখের পরীক্ষা করা এবং স্বাস্থ্যকর জীবনধারা বজায় রাখার মধ্যে দিয়ে চোখকে সুরক্ষিত রাখা যেতে পারে।

(Feed Source: news18.com)